২০২১ সালের মধ্যে বিদ্যুৎখাত কাঙ্ক্ষিত লক্ষে পৌছুবে

0
2

২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশের সকল মানুষ বিদ্যুৎ পাবে। এ সময়ে দেশের মোট বিদ্যুৎ উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ২৪,০০০ মেগাওয়াটে উন্নীত হবে।

পাওয়ার সেলের মহাপরিচালক মোহাম্মদ হোসেন বলেন, গ্রাহকদের চাহিদা মেটাতে বিদ্যুৎ উৎপাদনে এই প্রথম বারের মতো গত ৩০ জুন দেশে ৯,০৩৬ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করে দেশে বিদ্যুৎ উৎপাদনে সবোর্চ্চ রেকর্ড সৃষ্টি হলো। তিনি বলেন, সরকার এখন ২০২১ সালের মধ্যে ২৪,০০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনে কাঙ্খিত লক্ষ্য অজর্নে পৌছার অবস্থায় রয়েছে। হোসেন আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বলিষ্ট নেতৃত্বে সরকার ২০২১ সালের মধ্যে সকল নাগরিককে বিদ্যুৎ সুবিধার আওতায় নিয়ে আসার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারন করেছে।

পাওয়ার সেলের মহাপরিচালক আরো বলেন, আওয়ামীলীগের দুই মেয়াদের সাত বছরে বাংলাদেশের বিদ্যুৎ উৎপাদনের ক্ষমতা বৃদ্ধি পেয়ে ১৪,৫৩৯ মেগাওয়াট হয়েছে। তিনি বলেন, আওয়ামীলীগ সরকার বিগত সাত বছরে বিদ্যুৎ সেক্টরে ব্যাপক সাফল্য অজর্ন করেছে এবং বিদ্যুৎ উৎপাদন ২০০৯ সালে ৪,৯৪২ মেগাওয়াট থেকে তিনগুন বৃদ্ধি পেয়ে এখন ১৪,৫৩৯ মেগাওয়াট হয়েছে।

বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের (পিডিবি) পরিচালক (জনসংযোগ) সাইফুল হাসান চৌধুরী বলেন, সরকার প্রতিদিনের চাহিদা অনুয়ায়ি বিদ্যুৎ সরবরাহ করছে। তিনি বলেন, বিশ্বের মধ্যে বাংলাদেশে সর্বাধিক সংখ্যক সোলার প্যানেল স্থাপিত হয়েছে। বিদ্যুতের লোডশেডিং কমেছে। সরকার দেশের সাবির্ক উন্নয়নের জন্য বিদ্যুৎ খাতের উন্নয়নকে সর্বাধিক গুরুত্ব দিয়েছে। তিনি বলেন, ২০০১ সাল থেকে দেশে বিদ্যুৎ ঘাটতি ক্রমাগত বৃদ্ধি পাচ্ছিল। সরকার এই সংকট নিরসনে সবোর্চ্চ গুরুত্ব দিয়ে ২০১০ সালে বিদ্যুতের একটি মাষ্টার প্লান প্রণয়ন করে।

মন্ত্রনালয় সূত্রে জানা যায়, ২০০৮ সালে সবোর্চ্চ ৪০৩৬ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদিত হয়। বর্তমানে এর তিনগুন বেশি বিদ্যুৎ উৎপাদিত হচ্ছে। তিনি বলেন, সরকার ১০২টি বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র স্থাপন করেছে। ২০০৯ সালের পর থেকে সঞ্চালন লাইন ও বিতরন লাইন বৃদ্ধি করা হয়েছে। ২০০৯ সালে আওয়ামীলীগের ক্ষমতা গ্রহনের সময় দেশে বিদ্যুৎ উৎপাদনের ক্ষমতা ছিল ৪,৯৪২ মেগাওয়াট। ২০০৯, ২০১০,২০১১,২০১২,২০১৩,২০১৪,২০১৫,ও ২০১৬ সালে বিদ্যুৎ উৎপাদন পর্যায়ক্রমে বছরে ৩৬৫মে.ও, ৭৭৫ মে.ও, ১৭৬৩ মে.ও,৯৫১ মে.ও,১১৬৩ মে.ও, ৫৮৩ মে.ও, এবং ১,৯৯৭ মে.ও. বিদ্যুৎ উৎপাদন বেড়েছে।

বাংলাদেশ বর্তমানে ভারত থেকে ৬০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আমদানি করছে। সরকার ২০২১ সালের মধ্যে দেশকে মধ্য আয়ের দেশে রূপান্তর করতে দেশে একটি পারমানবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র ও একটি কয়লা ভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপনের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। লক্ষ্য অজর্ণে সরকার আরো আটটি বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপনের পরিকল্পনা করেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here