সাশ্রয়ী সৌর প্যানেল তৈরিতে নতুন সাফল্য

0
4
পরমাণু শক্তি কমিশন কার্যালয়ের সামনে সৌর প্যানেল

সূর্যশক্তি থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদনে ব্যবহৃত সৌর প্যানেল বা সৌরকোষ উৎপাদনে পরিবর্তন এসেছে৷ আরো সাশ্রয়ী, বেশি নিরাপদ এবং তুলনামূলক সহজে ব্যবহারের উপযোগী সৌর প্যানেল তৈরি করা সম্ভব হবে৷যুক্তরাজ্যের একদল বিজ্ঞানী সেই প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন৷ এ বিষয়ে নেচার সাময়িকীতে একটি গবেষণা প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে৷
প্রতিবেদনে বলা হয়, নতুন সৌর প্যানেলটির উৎপাদন পরিবেশবান্ধবও হবে৷ কারণ, সাধারণ সৌর প্যানেল তৈরিতে একধরনের বিষাক্ত রাসায়নিক উপাদান ব্যবহৃত হয়৷ কিন্তু নতুন প্যানেলটিতে সেই উপাদানের পরিবর্তে লবণ ব্যবহৃত হয়েছে৷ সৌর প্যানেল সাধারণত বাড়িঘরের ছাদে স্থাপন করা হয়৷ তবে বিদ্যুৎ উৎপাদনে এটির বিভিন্ন সীমাবদ্ধতা রয়েছে৷ গবেষকেরা এবার আগামী প্রজন্মের সৌর প্যানেল উৎপাদনের ক্ষেত্রে সবচেয়ে বড় সীমাবদ্ধতাটি দূর করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন৷ বিষাক্ত রাসায়নিক উপাদান ক্যাডমিয়াম ক্লোরাইডের পরিবর্তে তাঁরা নতুন প্যানেল তৈরিতে ব্যবহার করবেন ম্যাগনেশিয়াম ক্লোরাইড, যা কিনা সমুদ্রের পানিতে লবণ হিসেবে প্রচুর পরিমাণে পাওয়া যায়৷ এটি ব্যবহারে উৎপাদন খরচ অনেক কমে যাবে৷
গবেষণায় নেতৃত্ব দিয়েছেন লিভারপুল বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানী জন মেজর৷ তিনি বলেন, সৌর প্যানেলের মতো যন্ত্র তৈরির খরচ অনেকটাই কমে আসবে৷ বর্তমান পদ্ধতিতে এতে জীবাশ্ম জ্বালানির মতোই খরচ পড়ে৷ কিন্তু ম্যাগনেশিয়াম ক্লোরাডই খুবই সুলভ এবং সাগরের পানি থেকে সহজেই এটি আহরণ করা যায়৷ শীতপ্রধান দেশগুলোয় রাস্তা বরফমুক্ত করতে এটি বিপুল পরিমাণে ব্যবহার করা হয় এবং এতে পরিবেশের কোনো ক্ষতি হয় না৷ কাজেই সৌর প্যানেল উৎপাদনে ব্যবহৃত অত্যন্ত ব্যয়বহুল উপাদান ক্যাডমিয়ামের পরিবর্তে এখন থেকে অতি সাশ্রয়ী লবণ ব্যবহার করা যাবে৷
বর্তমানে প্রচলিত ৯০ শতাংশ সৌর প্যানেলে অর্ধপরিবাহী সিলিকনের ফোটোভোল্টাইক (পিভি) কোষ ব্যবহৃত হয়৷ এটি সূর্যালোককে সরাসরি বিদ্যুতে রূপান্তরিত করে৷ কিন্তু সূর্যালোক শোষণে সিলিকন ততটা ভালো নয়৷ আগামী প্রজন্মের সৌর প্যানেলে ব্যবহার করা হবে ক্যাডমিয়াম টেলুরাইডের সরু পিভি কোষ৷ এটি সূর্যালোক শোষণে অনেক বেশি কার্যকর হবে এবং সিলিকনের ১০০ ভাগের ১ ভাগ সরু হবে৷ তবে ক্যাডমিয়াম টেলুরাইডের পিভি কোষ ‘সক্রিয়’ করতে আবার সেই ক্যাডমিয়াম ক্লোরাইডের সহায়তা লাগবে৷ কিন্তু এটি নিরাপদে ব্যবহার করতে পারলে সূর্যালোক থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন ২ থেকে ১৫ শতাংশ বাড়ানো সম্ভব হবে৷
পিভি কোষ সক্রিয়করণে ক্যাডমিয়াম ক্লোরাইডের বিকল্প অনুসন্ধানের চেষ্টা করেছেন লিভারপুলের ওই গবেষকেরা৷ আশার কথা হলো, এখানেও বিকল্প উপাদান হিসেবে ম্যাগনেশিয়াম ক্লোরাইড ব্যবহারের সুযোগ রয়েছে৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here