শেভরন – ব্র্যাক সামাজিক বিনিয়োগ কার্যক্রম শুরু

0
5

সামাজিক বিনিয়োগ কার্যক্রম শুরু করল শেভরণ বাংলাদেশ। সামাজিক উন্নয়নে এক কোটি ডলার বিনিয়োগ করবে তারা। এই প্রকল্পের আওতায় ব্র্যাকের সাথে যৌথভাবে উদ্যোক্তা উন্নয়নে পরীক্ষামূলক বিশেষ কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে।

বুধবার রাজধানির হোটেল লেকশোর এ একার্যক্রম উদ্বোধন করা হয়।
বিদ্যুৎ ও জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন। এসময় বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন যুক্তরাষ্টের রাষ্ট্রদূত মার্সিয়া স্টিফেন্স ব্লুম বেরনিকাট। অন্যদের মধ্যে শেভরন এশিয়া প্যাসিফিক এ·প্লোরেশন এ্যান্ড প্রোডাকশনের প্রেসিডেন্ট মেলডি মেয়ার, ব্র্যাকের স্ট্র্যাটেজি, কমিউনিকেশন্স এবং এমপাওয়ারমেন্টের পরিচালক আসিফ সালেহ, শেভরন এশিয়া সাউথ লিমিটেডের পরিচালক ব্র্যাড মিডিলটন এবং শেভরন বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট কেভিন লায়ন উপস্থিত ছিল।
শেভরন বাংলাদেশ পরীক্ষামূলক আঠারো মাস উদ্যোক্তা উন্নয়ন কার্যক্রম পরিচালনা করবে। বিবিয়ানা, জালালাবাদ ও মৌলভীবাজার এলাকার মানুষের সামাজিক উন্নয়নে এই কার্যক্রম পরিচালনা করা হবে।
শেভরণের সাথে এই কাজ করবে ব্র্যাক।
ঐ এলাকার সামাজিক উন্নয়নে শেভরণ এক কোটি ডলার বিনিয়োগ করবে বলে ঘোষণা দিয়েছে। এই এক কোটি ডলার বিনিয়োগের একটি অংশ ব্র্যাক পরিচালনা করবে।

chevron.brac
প্রতিমন্ত্রী বলেন, আন্তর্জাতিক যেসব কোম্পানি বাংলাদেশে কাজ করছে তাদের সকলের উচিত এধরণের কার্যক্রম পরিচালনা করা। শেভরণ একাজের উদাহরণ সৃষ্টি করল। বাংলাদেশে বিদ্যুৎ জ্বালানি খাতে অনেক উন্নতি হয়েছে। ভবিষ্যতে আরও উন্নতি হবে। বাংলাদেশে বিনিয়োগ বাড়ছে। ভবিষ্যতে আরও বিনিয়োগ হবে। এধরণের সামাজিক কার্যক্রম বিনিয়োগকে উৎসাহিত করবে।
বার্নিকেট বলেন, মানুষের জীবন মান উন্নয়নে জ্বালানি দরকার। বাংলাদেশ অর্থনীতিতে অনেক উন্নতি করেছে। ভবিষ্যতে এই উন্নয়ন আরও বাড়বে। এজন্য জ্বালানির প্রয়োজন। তিনি বলেন, সামাজিক উন্নয়নে শিক্ষার জন্য খরচ করা একটা বিনিয়োগ। শিক্ষা বিশ্বকে বদলে দিতে পারে। একাজে শেভরণের ভূমিকা প্রশংসনীয়।
এ কার্যক্রমের মাধ্যমে প্রায় ২০ হাজার মানুষ উপকার পাবে। প্রায় এক হাজার ৫০০ উদ্যোক্তা তৈরী হবে।
মেয়ার বলেন, শেভরনের সফলতা সমাজের অগ্রগতির সাথে সম্পর্কিত। যা সহযোগিতা ও পারস্পারিক লাভজনক সম্পর্কের ভিত্তিতে গড়ে উঠে। ব্র্যাক ও শেভরন সহযোগিতার বাংলাদেশ পার্টনারশিপ ইনিশিয়েটিভ (বিপিআই) প্রকল্প বাস্তবায়ন হচ্ছে্। লায়ন বলেন,
এই প্রকল্পে মানুষের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে ব্র্যাকের অভিজ্ঞতা সহায়তা করবে।
এই প্রকল্পের মেয়াদ শেষ হওয়ার পরও এর প্রভাব চলমান থাকবে। সালেহ বলেন, এই যৌথ কার্যক্রম জনগোষ্ঠীর দারিদ্রসীমা কমানোর জন্য হাতিয়ার হিসাবে কাজ করবে।
শেভরন বাংলাদেশ, শেভরন কর্পোরেশনের একটি সহযোগী প্রতিষ্ঠান। বাংলাদেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলের বিবিয়ানা, জালালাবাদ ও মৌলভীবাজার – এ তিনটি গ্যাসক্ষেত্রে এটি প্রাকৃতিক গ্যাস উৎপাদন করে।
প্রায় ৩৭,০০০ মানুষকে শেভরন সেবা দিয়ে থাকে।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here