রামপাল বিদ্যুৎ কেন্দ্র করতে তিন বিদেশী কোম্পানির দরপ্রস্তাব জমা

0
6

তিন বিদেশী কোম্পানি রামপাল কেন্দ্র স্থাপন করতে দরপ্রস্তাব জমা দিয়েছে। মঙ্গলবার বাংলাদেশ-ভারত ফ্রেণ্ডশিপ পাওয়ার কোম্পানি (প্রা.) লিমিটেড (বিআইএফপিসিএল) কার্যালয়ে দরপ্রস্তাব জমা দেয়া হয়।
দুটি কোম্পানি যৌথভাবে এবং একটি এককভাবে দরপ্রস্তাব জমা দিয়েছে। জাপানের ‘মারুবেনি করপোরেশন’ ও ভারতের ‘লারসর এণ্ড টুবরো লিমিটেড’ – এই দুই কোম্পানি যৌথভাবে দরপ্রস্তাব জমা দিয়েছে। চিনের ‘হারবিন ইলেকট্রিক কোম্পানি লি.’ ‘ইটিইআরএন’ ও ফ্রান্সের আলসটম – এই তিন কোম্পানি যৌথভাবে জমা দিয়েছে। এছাড়া ভারত হেভি ইলেক্ট্রিক্যালস্ লিমিটেড (ভেল) এককভাবে দরপ্রস্তাব জমা দিয়েছে। মোট ছয়টি কোম্পানি দরপ্রস্তাব কিনলেও তিনটি জমা দিয়েছে।
চূড়ান্ত চুক্তির প্রায় ৫০ মাসের মধ্যে এই কেন্দ্র স্থাপন কাজ শেষ করার কথা।
বিআইএফপিসিএল এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইউ কে ভট্টাচার্য এনার্জি বাংলাকে বলেন, রামপাল বিদ্যুৎ কেন্দ্রর জন্য এটি একটি শুভ খবর। আশা করা হচ্ছে নিদিষ্ট সময়েই এই কেন্দ্র উৎপাদনে আসবে। বিদেশী কোম্পানিরাই বাংলাদেশে রামপাল কেন্দ্রর জন্য বিনিয়োগ করতে এসেছে। আগামী জানুয়ারি মাসের মধ্যে চুক্তি করা সম্ভব হবে বলে তিনি জানান। তিনি বলেন, পৃথিবীর সুনাধন্য কোম্পানি এই কেন্দ্র করার জন্য বিনিয়োগ প্রস্তাব দাখিল করেছে। এরা পরিবেশের ক্ষতি করে কোন কাজই করবে না। পরিবেশের ক্ষতি না করেই এই কেন্দ্র করা হবে। যে কোম্পানি কারিগরি বিষয় ঠিক রেখে সর্বোচ্চ কম দর দিয়েছে তাদেরকেই কাজ দেয়া হবে।
বিআইএফপিসিএল সংশ্লিষ্ঠরা জানান, দরপ্রস্তাব দাখিল করা হয়েছে মানেই বিনিয়োগও নিশ্চিত হয়েছে। সংশ্লিষ্ঠ কোম্পানিগুলো নিজস্ব যোগাযোগের মাধ্যমে বিনিয়োগ নিশ্চিত করেছে। সংশ্লিষ্ঠ কোম্পানি তাদের নিজস্ব দেশের ব্যাংকের মাধ্যমে বিনিয়োগ করার নিশ্চয়তা এনেছে বলে জানা গেছে। ফলে রামপাল বিদ্যুৎ কেন্দ্রে বিনিয়োগ ও কেন্দ্র স্থাপন দুটোই একধাপ এগিয়ে গেল।
সূত্র জানায়, প্রথমে তিন কোম্পানির কারিগরি প্রস্তাব মূল্যায়ন করা হবে। কারিগরি ভাবে যোগ্য হলে অর্থনৈতিক প্রস্তাব খোলা হবে। কারিগরি ও অর্থনৈতিকভাবে যোগ্য কোম্পানিকে কাজ দেয়া হবে। কারিগরি ও অর্থনৈতিক মূল্যায়ন শেষে একটি কোম্পানির সাথে চূড়ান্ত চুক্তি করা হবে।
কারিগরি ও অর্থনৈতিক মূল্যায়ন করার জন্য  বিআইএফপিসিএল এর ব্যবস্থাপনা পরিচালককে প্রধান করে আট সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। এই কমিটি সব কিছু মূল্যায়ন করবে।
ছয়টি কোম্পানি দরপ্রস্তাবের নথি কিনেছিল। এগুলো হল, জাপানের মারুবিনি করপোরেশন, ভারতের ভেল, চিনের হারবিন ও সিনোম্যাক এবং কোরিয়ার ডেও ইন্টারন্যাশনাল ও দোসান হেভি ইণ্ডাস্ট্রিজ।
গত ১৫ ফেব্রুয়ারি রামপালে বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনে আন্তর্জাতিক দরপত্র আহবান করা হয়। দরপত্র জমা দেয়ার শেষদিন ছিল ১৮ মে। পরে তা বাড়িয়ে ১৮ জুলাই করা হয়। পরে আবার আরও দুই মাস সময় বাড়িয়ে ২২ সেপ্টম্বর করা হয়।  দরপ্রস্তাব কেনা কোম্পানিগুলোর অনুরোধেই কয়েকদফা সময় বাড়ানো হয়েছিল বলে জানা গেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here