বিদ্যুৎ ব্যবহারে দেশের ৬১ ভাগ মানুষ খুশি-বিবিএস জরিপ

0
5

বিদ্যুৎ ব্যবহারে দেশের ৬১ ভাগ মানুষ খুশি। এরমধ্যে ২৫ ভাগ খুব খুশি আর ৩৬ ভাগ শুধু খুশি। ১১ দশমিক ২ ভাগ মানুষ বিদ্যুৎ ব্যবহারে অসন্তুষ্ট। এছাড়া ৩৫ দশমিক ৭ ভাগ মানুষ মনে করে সরকার গঠনে বিদ্যুৎ সেবা প্রভাব বিস্তার করে।
বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো’র (বিবিএস) এক জরিপ প্রতিবেদনে এই তথ্য দেয়া হয়েছে। সোমবার বিদ্যুৎ ভবনে জরিপ প্রতিবেদন উপস্থাপন করা হয়। প্রকল্প পরিচালক ড. দিপংকর রায়সহ কয়েকজন কর্মকর্তা এই গবেষণা করেন।
প্রতিবেদন উপস্থাপন করার সময় প্রধানমন্ত্রী বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিষয়ক উপদেষ্টা ড. তৌফিক ই ইলাহী চৌধুরী বীর বিক্রম, বিদ্যুৎ সচিব মনোয়ার ইসলাম, পরিসংখ্যান ও তথ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের সচিব কানিজ ফাতেমা, পাওয়ার সেলের স্রেডার চেয়ারম্যান তাপস কুমার রায়, মহাপরিচালক মোহাম্মদ হোসাইন, পিডিবি’র চেয়ারম্যান শেখ শাহিনুর রহমান খানসহ উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

survey 2
মোবাইল ফোনের মাধ্যমে বিভিন্ন বয়সী ৭৮৫ জনের সাথে কথা বলে এই প্রতিবেদন তৈরী করা হয়েছে। মোবাইল ফোনে কথা বলে বাংলাদেশে এটিই প্রথম গবেষণা। এবছর ২২ থেকে ২৯ জানুয়ারি এই গবেষণা করা হয়। গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০০৮ ও ২০০৯ সাল থেকে এখন ২৫ ভাগ মানুষ খুবই সন্তুষ্ট। ৩৬ ভাগ মানুষ সন্তুষ্ট। ২৭ দশমিক ৫২ ভাগ মানুষ কখনও সন্তুষ্ট কখনও অসন্তুষ্ট। ১১ দশমিক ২ ভাগ মানুষ মোটেই সন্তুস্ট নয়।
সরকার গঠনে বিদ্যুৎ সেবা প্রভাব ফেলে কিনা এমন প্রশ্নের উত্তরে ১১ ভাগ বলেছেন, কোন প্রভাব ফেলে না। ২৮ ভাগ মানুষ মনে করে খুব বেশি প্রভাব ফেলে। ২৫ ভাগ মানুষ প্রভাব ফেলে কিনা তা নিশ্চিত নয়। আর ৩৫ দশমিক ৭ ভাগ মানুষ মনে করে বিদ্যুৎ সেবা সরকার গঠনে প্রভাব ফেলে।

survey 3
বিদ্যুৎখাতের সরকারের ভবিষ্যত পরিকল্পনায় আস্থা রেখেছেন ৭৪ দশমিক ৫২ ভাগ মানুষ। তারা মনে করে সরকারের পরিকল্পনা যথার্থ। ১১ দশমিক ৭২ ভাগ মানুষের সরকারের পরিকল্পনায় আস্থা নেই। ১৩ দশমিক ৭৬ ভাগ মানুষ নিশ্চিত নয় পরিকল্পনা ঠিক হচ্ছে কিনা।
তৌফিক ই ইলাহী চৌধুরী এসময় বলেন, বিজ্ঞান সম্মত ভাবে এই জরিপ করা হয়েছে। প্রয়োজনে বিবিএসকে দিয়ে আরও জরিপ করিয়ে নেয়া হবে। বিদ্যুৎখাতে অনেক কাজ হয়েছে। আসছে রমজানে সাড়ে আট হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন হবে। ২০২১ থেকে ২০৪০ সালের দিকে নজর রেখে আগানো হচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here