আণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের জন্য ‘কোর ক্যাচার’ উদ্ভাবন

0
9

আণবিক বিদ্যুৎ চুল্লির নিরাপত্তা বৃদ্ধির লক্ষ্যে রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় আণবিক শক্তি কর্পোরেশন রোসাটমের অঙ্গ প্রতিষ্ঠান এটমএনার্গোপ্রোয়েক্ট উন্নত ধরনের একটি কোর ক্যাচার উদ্ভাবন করেছে। সম্প্রতি তুরস্কের আণবিক শক্তি বিশেষজ্ঞদের সম্মুখে নতুন কোর ক্যাচারটি উপস্থাপন করা হয়। তীব্র মাত্রার ভূমিকম্প সহনশীল, সহজে স্থাপন যোগ্য ও অন্যান্য সুবিধা সংবলিত নতুন কোর ক্যাচারটি রাশিয়া কর্তৃক নির্মিতব্য তুরস্কের আকুইয়ু আণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রে ব্যবহারের জন্য ডিজাইন করা হয়েছে।
এটমএনার্গোপ্রোয়েক্টের বিভাগীয় প্রধান আলেক্সান্দার সিডোরভ জানান যে, গবেষণালব্ধ তথ্যের ভিত্তিতে ডিজাইনকৃত নতুন কোর ক্যাচারটির অনেকগুলো সুবিধার মধ্যে একটি হলোÑ এটি স্থাপন করা সহজতর এবং স্থাপনে সময়ও প্রায় এক মাসের কম প্রয়োজন হবে।
তার মতে সম্ভাব্য সর্বোচ্চ মাত্রার ভূমিকম্প সহনশীল কোর ক্যাচারটির নিজস্ব শীতলিকরণ পদ্ধতি অনেক বেশি কার্যকর। এটি পূর্বের কোর ক্যাচারগুলোর তুলনায় ১৫% হালকা।
রুশ প্রকৌশলীরা সর্বপ্রথম কোর ক্যাচার উদ্ভাবন করেন। এটি আণবিক চুল্লির নিচে স্থাপিত একটি বিশেষ কন্টেইনার। যে কোন জরুরি অবস্থায় আণবিক চুিল্লর তরল ও কঠিন অংশগুলো স্বয়ংক্রিয়ভাবে এটির ভিতরে এসে জমা হয় এবং সুরক্ষিত থাকে। এর ফলে চুল্লির কন্টেইনমেন্ট কাঠামো ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে না এবং তেজস্ক্রিয়তাও বাইরে ছড়িয়ে পড়ার কোন সুযোগ থাকে না।
প্রথম কোর ক্যাচারগুলো ব্যবহৃত হয় সম্প্রতি নির্মিত চীনের তিয়ান ওয়ান ও ভারেতের কুদানকুলাম আণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্পে। বাংলাদেশের রূপপুরে প্রস্তাবিত আণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রেও কোর ক্যাচার ব্যবহৃত হবে।
তুরস্কের আকুইউ আণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রটি এটমএনার্গোপ্রোয়েক্ট প্রণীত নকশা অনুযায়ী তৈরি হচ্ছে। এটিতে ৩+ প্রজন্মের সর্বাধুনিক নিরাপত্তা ব্যবস্থা সংবলিত আইএএস ২০০৬ মডেলের চুল্লী ব্যবহৃত হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here