আইসোলাক্সের কাজে ফেরা অনিশ্চিত

0
0

বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপন বন্ধ রেখে চলে যাওয়া স্পেনের আইসোলাক্স এর কাজে ফেরা অনিশ্চিত। সরকারের বেধে দেয়া সময় শেষ হয়েছে। এখনও কাজে যোগ দেয়নি। কবে কাজে যোগ দেবে তাও অনিশ্চিত। এজন্য যে জরিমানা করার কথা ছিল তাও এখনও করা হয়নি।

এদিকে মঙ্গলবার সচিবালয়ে বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদের সাথে আইসোলাক্স করসন এর জ্বালানি ও নবায়নযোগ্য বিভাগের মহাপরিচালক জোসি ডাগো বৈঠক করেছেন। বৈঠকে বিভিন্ন বিষয় আলোচনা হলেও কাজে যোগ দেয়া বিষয়ে কোন সিদ্ধান্ত হয়নি বলে জানা গেছে।

বৈঠক সূত্র জানায়, নিরাপত্তার অজুহাত দেখিয়ে বাংলাদেশ ছেড়েছে আইসোলাক্স। কিন্তু তারা এখন পর্যন্ত সরকারের কাছে কোন নিরাপত্তা চায়নি। সরকার সকল ধরণের নিরাপত্তা দিতে প্রস্তুত বলেও জানানো হয়েছে। বিদ্যুৎ কেন্দ্র এলাকায় সর্বোচ্চ নিরাপত্তা দেয়া হবে বলেও তাদের জানানো হয়েছে। তাছাড়া আইসোলাক্স যেমন নিরাপত্তা চাইবে তেমনই দেয়া হবে। বৈঠকে নিরাপত্তার সার্বিক দিক নিয়ে আলোচনা হয়েছে। দ্রুত সময়ে কাজে যোগ দেয়ার অনুরোধ করা হয়েছে। কবে কাজ শুরু করবে কিংবা আদৌ কাজে যোগ দেবে কিনা তাও নির্দিষ্ট করে কিছু বলেনি বলে জানা গেছে।

বৈঠকে বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী নতুন করে নিরাপত্তার সমস্যা নেই বলে আইসোলাক্স প্রতিনিধিকে আশ্বস্ত করেন।

আইসোলাক্সকে ৫ নভেম্বরের মধ্যে কাজে যোগ দেয়ার সময় বেধে দিয়েছিল বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রনালয়। এই সময়ের মধ্যে বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপনের কাজ শুরু না করলে জরিমানা করার কথা ছিল। কিন্তু সে সময়ে তারা কাজ শুরু করেনি। এদিকে চুক্তি অনুযায়ি কাজ শেষ না করে চলে যাওয়ায় আইসোলাক্সকে জরিমানা দিতে হবে। সে জরিমানা অবশ্য এখনও নির্দিষ্ট করা হয়নি বলে জানা গেছে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশে এমন কোন অবস্থা নেই যে কাজ ছেড়ে চলে যেতে হবে। সব কিছু স্বাভাবিক আছে। যেখানে বিদেশীরা কাজ করছিল তা সর্বোচ্চ নিরাপদ এলাকা, কেপিআই ভূক্ত। বিদ্যুৎ কেন্দ্রে নিরাপত্তার কোন সমস্যা নেই, আগেও ছিল না। তাছাড়া বাংলাদেশের কোথাও নিরাপত্তার সমস্যা নেই।

সূত্র জানায়, চুক্তি অনুযায়ি আইসোলাক্স এভাবে কাজ ছেড়ে চলে যেতে পারে না। কাজে যোগ না দিলে চুক্তি ভঙ্গ করা হবে। নিরাপত্তা নিয়ে তাঁদের উদ্বিগ্ন হওয়ার কিছু নেই। চুক্তি অনুযায়ি প্রকল্প থেকে কর্মি প্রত্যাহারের সুযোগ নেই।

এরআগেই আইসোলেক্সকে চিঠি দিয়ে চলে সর্তক করা হয়েছিল। চুক্তির কোন অনুচ্ছেদ অনুযায়ী তড়িঘড়ি কর্মী প্রত্যাহার করা হলো তাও চিঠিতে জানতে চাওয়া হয়েছিল।

আইসোল্যাক্স নামের স্পেনের এই কোম্পানি সরকারি খাতের তিনটি বিদ্যুৎ কেন্দ্রে কাজ করছিল। ৫ই অক্টোবর পিডিবিকে লেখা এক চিঠিতে কোম্পানিটি নিরাপত্তার অজুহাতে বিদ্যুৎ কেন্দ্র তিনটি  থেকে তাদের বিদেশি ৪১জন নাগরিককে সাময়িকভাবে সরিয়ে নেয়। আইসোলাক্সে কাজ করা বিদেশীদের মধ্যে স্পেনের নাগরিক ২১ জন। অন্যরা আর্জেন্টিনা, বুলগেরিয়াসহ কয়েকটি দেশের।

ইলেক্ট্রিসিটি জেনারেশন কোম্পানির (ইজিসিবি) সিদ্ধিরগঞ্জ ৩৩৫ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ কেন্দ্র থেকে ৩৮ জন, বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের (পিডিবি) বিবিয়ানা-৪৫০ মেগাওয়াটের এক নম্বর ইউনিট থেকে দু’জন এবং নর্থ ওয়েস্ট পাওয়ার জেনারেশন কোম্পানির খুলনা-১৫০ মেগাওয়াট কেন্দ্র থেকে একজন চলে গেছে। বর্তমানে সিদ্ধিরগঞ্জ বিদ্যুৎকেন্দ্রের কাজ বন্ধ আছে। বিবিয়ানায় মাটি ভরাটের কাজ চলছে। আর খুলনা বিদ্যুৎ কেন্দ্রের উৎপাদন চালু আছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here