অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের আমদানি কমেছে

0
2

অপরিশোধিত জ্বালানি তেল আমদানি ফেব্রুয়ারি থেকে মার্চে বেড়ে যায়, পরে এপ্রিলে এসে তা আবার কমে যায়। আগের বছরের একই সময়ের তূলনায় অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের আমদানি ফেব্রুয়ারি মাসে ৮১ ভাগ কমে যায়, মার্চে ৫ ভাগ বেড়ে যায়, আবার এপ্রিলে এসে ৯৫ ভাগ কমে যায়। পেট্রোলিয়ামজাত পণ্য আমদানি মার্চে সামান্য বৃদ্ধি পায় এবং এপ্রিলে কমে যায়। গত বছরের তূলনায় এই প্রান্তিক জুড়ে এর আমদানি সামান্য কমেছে।

graf 2

উপরের চিত্র অনুসারে গ্যাস উৎপাদনে ঊঠানামার প্রবণতা দেখা যাচ্ছে। জানুয়ারি থেকে মার্চে উৎপাদন একটু বেড়েছিল, কিন্তু এপ্রিলে এসে তা আবার কমে যায়। কয়লা উৎপাদন এ বছরের জানুয়ারি থেকে এপ্রিলে ক্রমে কমেছে, এপ্রিলে তা উল্লেখযোগ্যভাবে কমে যায়।

২. বিদ্যুৎ

জ্বালানি নির্ভর

 

graf 3

 

 

 

 

 

২০১৫ সালের মে থেকে জুলাই মাস পর্যন্ত বিদ্যুৎ উৎপাদনের স্থাপিত ক্ষমতার শতকরা হারে অবদান-
* গ্যাসভিত্তিকে উৎপাদন ৬৭ শতাংশ থেকে ৬৩ শতাংশে কমে এসেছে,যখন বিদ্যুৎ আমদানি অপরিবর্তিত ছিল।
* * ডিজেলভিত্তিকে উৎপাদনের অবদান ১ শতাংশ বেড়েছে, আরজল ও কয়লা বিদ্যুৎ উৎপাদন অপরিবর্তিত ছিল।
মে, ২০১৪ থেকে মালিকানা ভিত্তিক উৎপাদন ক্ষমতার অবদান-
*বাপাউবো-এর ক্ষেত্রে অপরিবর্তিত ছিল।
*আইপিপি-এর ক্ষেত্রে ১৬ শতাংশ থেকে ১৯ শতাংশে বৃদ্ধি পায়।
*৩/৫ বছরের চুক্তির আর এন্ড কিউ আর পি পি-এর ক্ষেত্রে ১৬ শতাংশ থেকে কমে ১৫ শতাংশে নেমে আসে।
*অন্য ধরণের ক্ষেত্রে ১ শতাংশে কমে আসে।

৩. বিদ্যুৎ উৎপাদন

graf 4

 

 

 

 

*পুর্ববর্তী ২০১৪ সালের একই সময়ের তূলনায় এই প্রান্তিকে চালু বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্রের সংখ্যা উল্লেখযোগ্যভাবে কমে যায়। রক্ষণাবেক্ষণ সংক্রান্ত সমস্যা ছাড়াও জ্বালানী ঘাটতি, কুইক রেন্টাল ও রেন্টাল প্ল্যান্টের সাথে চুক্তির মেয়াদ উত্তীর্ণ হওয়ায় উৎপাদন ব্যহত হয়েছে।
*সর্বোচ্চ চাহিদা ও সর্বোচ্চ উৎপাদন এই প্রান্তিকে আগাগোড়া একই রকম থাকে। তবে গতবছর একইসময়ে এগুলো এক সমান ছিল না।
*এই প্রান্তিকে কোন লোডশেডিং হয়নি যা আগের বছরের একই সময়ের চিত্রের বিপরীত

৪. নবায়নযোগ্য জ্বালানি

graf 5

 

 

 

 

 

২০১৫ সালের এপ্রিল থেকে জুন মাসে মাসিক ভিত্তিতে বসতবাড়িতে সৌরবিদ্যুৎ যন্ত্র স্থাপনের সংখ্যা উল্লেখযোগ্য মাত্রায় কমে যায়, যেখানে ২০১৪ সালে এপ্রিল থেকে মে মাসে তা বৃদ্ধি পেয়েছিল এবং জুনে কমে গিয়েছিল।

২০১৫ সালের এপ্রিল থেকে জুন মাসে মাসিক ভিত্তিতে জৈব গ্যাসপ্ল্যান্ট স্থাপনের সংখ্যা কমেছে। ২০১৪ সালের একই প্রান্তিক সময়েও তা কমেছিল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here